ধনী ও বিত্তশালীরা দরিদ্র্যদের পাশে দাঁড়ান – অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি

মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন:
জনগণকে করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন ও সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে আজ শুক্রবার এক বিবৃতিতে মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি বলেছেন, প্রাণঘাতী নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ^ আজ মারাত্মক সংকটের সম্মুখিন। এই মহামারি নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন সতর্ককতা ও সচেতনতা। এজন্য ঘরে ঘরে সচেতনতা ও সতর্কতার দুর্গ গড়ে তুলুন।

অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি বলেন, করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে ঘর বন্দি থাকায় স্বল্প-আয়ের দিনমজুর ও দরিদ্র্য মানুষ জীবিকার সংকটে পড়বে। এজন্য সরকারের পাশাপাশি সমাজের ধনী বিত্তশীলদের সহযোগিতার হাত সম্প্রসারিত করতে হবে। আমাদের পারস্পারিক সহযোগিতাই পারে ভয়াবহ সংকট মোকাবিলা করতে।

জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হবেন না। প্রত্যেকেই পরিষ্কার ও পরিচ্ছন্ন থাকুন, হাঁচি-কাশি দেওয়ার সময় হাতের কনুই অথবা টিস্যু বা রুমাল ব্যবহার করা, সাবান দিয়ে ২০ সেকেন্ডের বেশি সময় ধরে হাত ভালোভাবে ধুইয়ে নেওয়া, বাইরে বের হলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করা, বাসাবাড়ি, লিফট, সিঁড়ি, সিঁড়ির রেলিং, জামাকাপড়, ঘরের জানালা পরিষ্কার রাখা, প্রতিদিনের ময়লা প্রতিদিন ডাস্টবিনে ফেলে দেওয়া, ঘরে ও বাইরে আলাদা জুতা ব্যবহারসহ সরকার ঘোষিত সকল ধরনের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও জীবনের নিরাপত্তা রক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশ তথা বিশ^বাসীর এই ক্রান্তিলগ্নে সকলকে ধৈর্য্য, সতর্কতা, দায়িত্বশীলতা, মানবিকতা ও দেশপ্রেমের সাথে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারের গৃহীত কার্যক্রমে স্থানীয় প্রশাসন ও সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। আপনারা কোন প্রকার গুজবে কান দিবেন না। সঠিক তথ্যের জন্য প্রচলিত গণমাধ্যম তথা টেলিভিশন-রেডিও-সংবাদপত্রের মাধ্যমে প্রচারিত সরকারি নির্দেশনা মেনে চলুন।