মেঘনা নদীতে বাল্কহেডে চাঁদা তুলতে গিয়ে পিটুনিতে চাঁদাবাজ নিহত

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলা সংলগ্ন মেঘনা নদীতে বাল্কহেডে চাঁদা তুলতে গিয়ে বাল্কহেড শ্রমিকদের মারধরে মামুন বেপারী(৩৮) নামের এক চাঁদাবাজ নিহত হয়েছে। শনিবার দুপুরের মেঘনা নদীর চাদপুরের উত্তর মতলবের সন্তোসপুর এলাকায় এঘটনা ঘটে।
নিহত মামুন গজারিয়া উপজেলার গুয়াগাছিয়ার দক্ষিণ জামালপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে। সে দীর্ঘদিন ধরে মেঘনা নদীতে চাঁদাবাজি করে আসছিল বলে জানিয়েছে নৌপুলিশ।
চাঁদপুরের বেলতলী নৌ-পুলিশের ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম জানান, দুপুর দুইটায় মেঘনা নদীতে মামুনসহ কয়েকজন জন চাঁদাবাজ একটি ট্রলার নিয়ে বাল্কহেডে চাঁদা তুলতে যায়। এসময় একটি বাল্কহেড শ্রমিকরা তাদের চাঁদা দিতে অস্কৃতি জানালে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এসময় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বাল্কহেড শ্রমিকরা হেমার (লোহার হাতুরি) দিয়ে চাঁদাবাজ মামুনের মাথায় আঘাত করলে গুরতর আহত হয়। পরে তার সাথের লোকজন তাকে গুরত্বর আহত অবস্থায় চিকিৎসার জন্য গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু।
গজারিয়া নৌ-পুলিশের ইনচার্জ আব্দুস সালাম জানান, মামুন বেপারী একজন চিহ্নিত নৌ ডাকাত ও চাঁদাবাজ। তবে নিহতের ছোট ভাই শাহাদাৎ হোসেনর দাবি তার ভাই রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। তিনি বলেন রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে নদীতে নিয়ে গিয়ে তাকে সুকৌশলে হত্যা করা হয়েছে।
গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: রই ছ উদ্দিন জানান, নিহতের লাশ তার স্বজনরা গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। তবে ঘটনাটি নদীর যে অংশে ঘটেছে সেটি মেঘনা নদীর চাঁদপুরের উত্তর মতলব এলাকায় পরেছে। তাই এখন গজারিয়া থানা থেকে শুধুমাত্র নিহত মরদেহের সুরতহাল করা হবে। মামলা মতলব উত্তর থানায় করা হবে।