সমৃদ্ধ দেশ বিনির্মাণে নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনা এবং দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে হবে -অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি

মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি বলেছেন, ১০ জানুয়ারি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস, সমৃদ্ধ দেশ বিনির্মাণে আগামী প্রজন্মকে সুমহান মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনা এবং দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।

অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিব বর্ষ’ এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর এই যুগসন্ধিক্ষণে স্বাধীনতা-মুক্তি প্রগতি ও সমৃদ্ধির ধারক-বাহক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার সুযোগ রয়েছে। আগামী প্রজন্মকে মহান মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনা এবং দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে সকলকে কাজ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক একটি উন্নত সমৃদ্ধ কল্যাণকর রাষ্ট্র বিনির্মাণে সকলকে ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস চালিয়ে যেতে হবে।

আজ ধানমন্ডি বত্রিশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এবং ১৯ জানুয়ারি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির প্রথম সাধারণ সভায় এসব কথা বলেন  তিনি। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপকমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংযুক্ত হন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি। সভায় সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা রশিদুল আলম।

অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের এমপি বলেন, জনগণ দ্বারা প্রত্যাখ্যাত হয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী অপশক্তির প্রতিভূ বিএনপি বারবার প্রতারণা ও চাতুর্যের আশ্রয় নিচ্ছে। তাদের চাতুর্য আছে কিন্তু নৈতিকতা নেই—জনগণের মুখোমুখি দাঁড়াবার সৎ সাহস এবং রাজনৈতিক অবস্থানও নেই। বিএনপি নেতারা হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে চিরাচরিত মিথ্যাচারের রেকর্ড বাজাচ্ছে। তারা শীতনিদ্রায় রয়েছেন। আজকে তারা ভোটের মাঠে নেই, কিন্তু লিপ সার্ভিসে মিডিয়ায় অত্যন্ত সরব।

তিনি বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তির পৃষ্ঠপোষকতায় উগ্র সাম্প্রদায়িকতা দেশের হাজার বছরের লালিত ঐতিহ্যকে নষ্ট করতে চায়। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করে এই অপশক্তিকে মোকাবিলা করে আদর্শকে সমুন্নত রাখতে হবে। এজন্য জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের এগিয়ে আসতে হবে। অসা¤প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ে তোলার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী অপশক্তির বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান তিনি।