সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির চেতনায় উদ্ভাসিত পবিত্র ঈদ পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে পালন করুন – অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি

মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি আজ এক বিবৃতিতে বলেছেন- বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক সংকট এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে খেটে খাওয়া অনেক মানুষ সংকটের সম্মুখিন। সংকটাপন্ন এসব মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে পালন করুন সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির চেতনায় উদ্ভাসিত পবিত্র ঈদ। সব যাতনা ভুলে পবিত্র ঈদে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিন।

অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস বলেন, পবিত্র রমজান মাসের রোজা আদায়ের মধ্য দিয়ে আত্মসংযম, সংবরণ ও ত্যাগের অনুশীলনকে হৃদয়ে ধারণ করে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরে ধনী-গরীব উভয়ের মাঝে খুশি ভাগাভাগি করে নেওয়ার মধ্য দিয়ে পারস্পরিক বন্ধন অটুট হয়। আত্মত্যাগের এ মর্ম অনুধাবন করে সমাজে সৌহার্দ্য, সাম্য, শান্তি ও কল্যাণ প্রতিষ্ঠায় আত্ম-সংযম ও আত্মত্যাগের মানসিকতায় উজ্জীবিত হতে হবে। ধর্ম, বর্ণ, শ্রেণি পেশা নির্বিশেষে সকল মানুষের কল্যাণে কাজ করতে হবে। আসুন, পবিত্র ঈদ উপলক্ষে সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের পাশে দাঁড়ায়- সকলে মিলে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করি নিই।

তিনি বলেন, নিরব জীবনঘাতি ভাইরাস করোনা প্রতিরোধে দীর্ঘদিন ধরে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে চলতে অনেকেই বিরক্ত হয়ে পড়ছেন। যা অত্যন্ত উদ্বেগ ও আশংকার বিষয়। বৈশি^ক এই ভয়াবহ দুর্যোগে সকলকে পরম ধৈর্য্য ও সচেতনতা মেনে চলতে হবে। এই মুহুর্তে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার কোন বিকল্প নেই। সুস্থ্য থাকতে হলে- বেঁচে থাকতে হলে স্বাস্থ্য বিবি মেনে চলতেই হবে।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসে সৃংষ্ট সংকট এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অর্থনৈতিক সংকটের সম্মুখীন। ফলে এবার অনেকেই ঈদের সেমাই-চিনিসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী ক্রয় করার সামর্থ্য হারিয়ে ফেলেছেন। এই মানবিক সংকটে সমাজের বিত্তশালীদের এগিয়ে আসা উচিত।