মুন্সীগঞ্জের মীরকাদিম পৌর এলাকায় ৫ সহস্রাধিক পরিবারের মাঝে অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি’র খাদ্য সহায়তা প্রদান

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মীরকাদিম পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ৩৩টি গ্রামের অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া, দিনমজুর, কর্মহীন খেটে খাওয়া ৫ সহস্রাধিক পরিবারের মাঝে ব্যক্তিগত উদ্যোগে খাদ্য সহায়তা প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি। খাদ্য সহায়তা সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে- ২৮ টন চাল, ১০ টন আলু, ৫ হাজার লিটার তেল, ৫ হাজার কেজি পেঁয়াজ, ৫ টন ডাল। করোনা সংকট শুরু হওয়ার পর থেকেই অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপির উদ্যোগে মুন্সীগঞ্জ সদর ও গজারিয়া উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকায় মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

গতকাল শুক্রবার মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মীর কাদিম পৌরসভার গোয়ালঘূর্ণি, এনায়েত নগর, গোপালনগর ও পূর্বপাড়া মসজিদ প্রাঙ্গণে শারীরিক দূরত্ব মেনে মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি নিজে উপস্থিত থেকে কর্মহীন খেটে খাওয়া মানুষের হাতে খাদ্য সহায়তা সামগ্রী তুলে দেন এবং মীর কাদিম পৌরসভার অন্যান্য গ্রামসূহে মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়ার জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত দলীয় নেতা-কর্মীদের নিকট খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন।

খাদ্য সহায়তা প্রদানকালে অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস বলেন, বৈশি^ক মহামারি করোনা ভাইরাসে সৃষ্ট সংকটে বিপর্যস্ত মানব-সমাজ। করোনা সংকট মোকাবেলায় বিশে^র উন্নত রাষ্ট্রসমূহও হিমশিম খাচ্ছে। বিশ^ব্যাপী প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা। প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশও। করোনা সংকট মোকাবেলায় বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার ব্যাপক কর্মপ্রয়াস চালিয়ে আসছে।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা এদেশের মাটি ও মানুষকে নিজের প্রাণের চাইতেও বেশি ভালোবাসেন। তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাজপথে এদেশের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করেছেন- বার বার মত্যুর মুখোমুখি হয়েছেন। তারপরও জনকল্যাণ ও জনগণের ভাগ্যোন্নয়নের প্রশ্নে আত্মনিবেদিত থেকেছেন সব সময়। তিনি আপন মাতৃছায়ায় এদেশের মানুষের জীবনমানোন্নয়নে কাজ করে চলেছেন। করোনা ভাইরাসে সৃষ্ট সংকট শুরু হওয়ার পর তিনি অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া এদেশের কোন মানুষ যেন না খেয়ে কষ্ট না পায় সেজন্য ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়ার কর্মসূচি গ্রহণ করেন। বঙ্গবন্ধুকন্যা নির্দেশে সরকারিভাবে সারাদেশে ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। এমনকী ৫০ লক্ষ পরিবারের কাছে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে নতুন অনুদান পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী এবং জনপ্রতিনিধরাও ব্যাপকভাবে খাদ্য সহায়তা ও স্বাস্থ্য সামগ্রী নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদুজ্জামান বাসু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আল মাহমুদ বাবু, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর রহিম বাদশা, আব্দুস সালাম, কাউন্সিলর জলিল মাদবর, উপজেলা কৃষক লীগ সভাপতি মো. পিয়ার হোসেন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি খালিদ মাহমুদ রফি, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মো. সেকান্দার প্রমুখ।