একুশের শত্রু সাম্প্রদায়িকতা একুশের প্রতিপক্ষ ধর্মান্ধ জঙ্গিবাদ – অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি

মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন:
মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি, একুশ মানে মাথা নত না করা। একুশের শত্রু সাম্প্রদায়িকতা। একুশের প্রতিপক্ষ ধর্মান্ধ জঙ্গিবাদ। একুশ একটি ভেদ-বৈষম্যহীন সমাজ গঠনের প্রেরণার অনন্ত উৎস। জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার অন্যায়ের কাছে, দুর্বৃত্তায়নের কাছে মাতা নত করে না, করবে না।

গতকাল শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস মুন্সীগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত এবং গজারিয়া উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদারের সভাপতিত্বে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন পিপিএম, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম, সিভিল সার্জন আবুল কালাম আজাদ, মেয়র ফয়সাল বিপ্লব। আরও বক্তব্য রাখেন এডিসি দীপক কুমার রায়, মীর নাছির উদ্দিন উজ্জ্বল, শাহীন মো: আমানউল্লাহ, আব্দুল মতিন, গোলাম মাওলা তপন প্রমুখ। গজারিয়া উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- গজারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইষলাম, সাবেক চেয়ারম্যান রেফায়েতুল্লাহ খান তোতা, সলেমান দেওয়ান, আল-মাহমুদ বাবু, গোলাম মাওলা তপন, আতাউর রহমান নেকী, খাদিজা আক্তার আখি, মনিরুল হক মিঠু, মিজানুর রহমান প্রধান, সাইদ মো. লিটন, সাইদুর রহমান খান, আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ।21-mp-1

অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস বলেন, একুশ আমাদের কাছে, দুঃশাসনের কাছে, দুর্বৃত্তায়নের কাছে এবং অমানবিকতার কাছে মাথা নত না করার শিক্ষা দেয়। বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুর্বৃত্তায়ন, দুস্কৃতিকারী, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ, মাদক-চাঁদাবাজ ও দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে যে অভিযান শুরু হয়েছে তা অব্যাহত থাকবে। জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার অন্যায়ের কাছে, দুর্বৃত্তায়নের কাছে মাতা নত করে না, করবে না।

তিনি বলেন, একুশ মানে মাথা নত না করা। একুশের শত্রু সাম্প্রদায়িকতা। একুশের প্রতিপক্ষ ধর্মান্ধ জঙ্গিবাদ। একুশের চেতনা ভাষাভিত্তিক জাতীয়তার দ্যোতক। একুশ স্বাধীনতার কথা বলে। একুশ মুক্তির কথা বলে। একুশ একটি ভেদ-বৈষম্যহীন সমাজ গঠনের প্রেরণার অনন্ত উৎস। একুশ জাতি-বিদ্বেষ, ধর্ম-বিদ্বেষ, নারী-বিদ্বেষ, দেশ-বিদ্বেষ, সংস্কৃতি-বিদ্বেষ, গণতন্ত্র ও মানবিকতা-বিদ্বেষকে ‘না’ জানায়।

তিনি বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠীর সকল ষড়যন্ত্র রুখে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় একটি উন্নত সমৃদ্ধ প্রগতিশীল কল্যাণকর রাষ্ট্র গঠনে কাজ করতে হবে।