বরযাত্রীদের গাড়ী বহরে ফেরীর স্টাফদের হামলায় আহত ৭

দাবী অনুযায়ী ভাড়া না দেওয়ায় মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় শুক্রবার সন্ধ্যায় বিয়ের অনুষ্ঠান ফেরত গাড়ী বহরে ফেরীর স্টাফদের হামলায় ৭ বরযাত্রী আহত হয়েছে। এ সময় বরযাত্রী বহরের ৪ টি গাড়ী ভাংচুর করে। ঘটনাস্থল থেকে ১ হামলাকারীকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ব্যক্তির নাম সালেহ আহমেদ। সন্ধ্যা ৬ টার দিকে রসুলপুর গ্রাম সংলগ্ন ফুলদী নদীর খেয়াঘাটে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বরযাত্রীদের রক্ষা করে।

বরযাত্রী মো: পারভেজসহ আহত সবাইকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়। গজারিয়া থানার ওসি ফেরদৌস হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, গজারিয়া উপজেলার গোসাইরচর গ্রামে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বর-কনেসহ বরযাত্রীদের একটি গাড়ী বহর ঢাকার মধ্য বাড্ডায় ফিরছিল।পথিমধ্যে গোসাইরচর গ্রাম থেকে রসুলপুর খেয়াঘাটে আসার উদ্দেশ্যে ফুলদী নদী পাড়ি দিতে বরযাত্রীদের গাড়ী বহরের ২ টি বাস ও ২ টি মাইক্রো ফেরীতে উঠে। এ সময় বরযাত্রীদের গাড়ী বহরে থাকা বাস ও মাইক্রো থেকে সরকার নির্ধারিত ১’শ টাকা ভাড়ার স্থলে কয়েক গুন বেশী ভাড়া দাবী করে ফেরীর স্টাফরা।

এ নিয়ে বরযাত্রী ও ফেরীর স্টাফদের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে ফেরীর স্টাফ ও রসুলপুর খেয়াঘাটের শ্রমিকরা বরযাত্রীদের উপর হামলা চালায়।গজারিয়া উপজেলার গোসাইরচর গ্রামের আব্দুর রশীদের মেয়ে বন্যা আক্তার (২২) ও ঢাকার মধ্য বাড্ডার ঈমাম হোসেনের ছেলে রুবেল হোসেনের মধ্যে বিয়ে সম্পন্ন হয়।