গজারিয়ায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ নিয়ে কারখানা ও রেস্টুরেন্ট চালানোর অপরাধে ০৪ জন গ্রেফতার

গজারিয়ায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ নিয়ে কারখানা ও রেস্টুরেন্ট চালানোর অপরাধে ০৪ জন গ্রেফতার

মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন:
গজারিয়ায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ নিয়ে কারখানা ও রেস্টুরেন্ট চালানোর অপরাধে ৪জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ এর একটি টিম। এ সময় কারখানা ও রেস্টুরেন্ট এর অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিছিন্ন করে কারখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১১ আদমজী নারায়নগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সিপিএসসি, ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার মোঃ জসিম উদ্দীন চৌধুরী, পিপিএম।

গোপন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে অদ্য ১৯ জানুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে বিকালে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি এর বিশেষ আভিযানে মু›সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানাধীন জামালদি বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়ে মার্বেল কারখানা ও রেস্টুরেন্ট চালানোর অপরাধে ০৪ জন গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলোঃ কারখানার মালিক মোঃ রিপন প্রধান (৩৬), প্রধান মিস্ত্রি মোঃ খলিলুর রহমান (৩০), গ্যাস লাইন মিস্ত্রি মোঃ মুরাদ হোসেন (৩২) ও সহকারী মিস্ত্রি মোঃ নজরুল ইসলাম (৪০)। পরবর্তীতে তিতাস গ্যাস কোম্পানী কর্তৃক উক্ত মার্বেল কারখানা ও রেস্টুরেন্টের গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃতরা দীর্ঘদিন যাবৎ পরস্পর যোগসাজসে তিতাস গ্যাস কোম্পানীর প্রদত্ত মেইন লাইনে ছিদ্র করে অভিনব কৌশলে অবৈধভাবে গ্যাস চুরি করে মার্বেল কারখানা চালিয়ে আসছে। গ্রেফতারকৃত রিপন @ কাইল্যা রিপন উক্ত অবৈধ গ্যাস সংযোগের মূলহোতা। মার্বেল কারখানা ছাড়াও তার মালিকানাধীন দারুচিনি নামক একটি রেস্টুরেন্টে দীর্ঘদিন যাবৎ অবৈধ গ্যাস সংযোগ দিয়ে ব্যবসা করে আসছে। এভাবে তারা প্রতি বছর প্রায় লক্ষ লক্ষ টাকার গ্যাস চুরি করে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সম্পত্তির ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে আসছে। পরবর্তীতে তিতাস গ্যাস কোম্পানী কর্তৃপক্ষ কর্তৃক উক্ত মার্বেল কারখানা ও রেস্টুরেন্টের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। উল্লেখ্য তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ইতোপূর্বে উক্ত মার্বেল কারখানা ও রেস্টুরেন্টের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বেশ কয়েকবার বিচ্ছিন্ন করা হলেও পুনরায় তারা অবৈধ গ্যাস সংযোগ স্থাপন করে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে মু›সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।####