শহীদ নজরুলের স্মরণে আলোচনা সভা

শহীদ নজরুলের স্মরণে আলোচনা সভা

মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন :
মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ গজারিয়া থানা বিএলএফ কমান্ডার শহীদ নজরুল ইসলামের ৪৭তম সাহাদাত বার্ষিকী পালন উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া ও সমাধিতে পুস্প স্তাবক অর্পণ ও কাঙ্গালী ভোজের আয়োজন করা হয়েছে আজ রোববার।
আজ সকাল দশটায় শহীদ নজরুলের নামে তাঁর নিজ গ্রামে প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ নিবদ্ধন অধিদপ্তরের মহা পরিদর্শক ড. খান মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমশিনের সাবেক সদস্য আইজি প্রিজন লিয়াকত আলী খান, স্থানীয় সরকার বিভাগের পিডি প্রকৌশলী মামুনুর রশিদ।pic-2, date-09-12-2018
সভাপতিত্ব করেন শহীদ নজরুর ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাফিজ আহম্মদ।
আলোচনা সভা সূত্রে জানা যায়, নজরুল একটি সংগ্রামী মুখ।
পুরোনাম এ, কে এম নজরুল ইসলাম (কিরন) ১৯৪৯ সালে ১৫ই অক্টোবর মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়নের চরবাউশিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ।
১৯৬৬ সালে আজিমপুর ওয়েষ্ট এন্ড হাইস্কুল থেকে এসএসসি ১৯৬৮ সালে জগন্নাথ কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন ১৯৭০ সালে জগন্নাথ কলেজ (জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) বিএ শেষ বর্ষের ছাত্র থাকা অবস্থায় আ স ম আব্দুর রব ১৯৭১ সালে যে পতাকা উত্তোলন করে ছিলেন সেই পতাকাবাহী ছিলেন গজারিয়ার সন্তান শহীদ নজরুল ইসলাম।
৭১ এর ৯ই ডিসেম্বর ৩০/৩৫ জন মুক্তিযুদ্ধাসহ গজারিয়ায় অবস্থান করছিলেন কমান্ডার নজরুল, খবর পেল গজারিয়ার ভাষারচর নদীরপাড়ে পাকবাহিনী অবস্থান করেছে । পাকবাহিনীর সাথে গোলাগুলির এক পর্যায় গ্রেনেড বিস্ফোরিত হলে নজরুলসহ ৪ জন মুক্তিযুদ্ধা আহত হন। পরে আহত অবস্থায় নজরুলকে বেলতলী স্বাস্থ্যকমপে¬ক্সে নেয়ার পথে শহীদ হন ।
চুড়ান্ত বিজয়ের বিজয়ের মাত্র ৭ দিন আগে, ৯ই ডিসেম্বর নিজ গ্রামের সন্নিকটে শহীদ হন নজরুল । ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে মেঘনা গোমতী সেতুর ঢালে পুরাতন ফেরীঘাটে তাকে সমাধিত করা হয় । শহীদ মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলামের ৪৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে ।
আরো উপস্থিত ছিলেন বীর প্রতিক রফিকুল ইসলাম, সাবেক থানা কমান্ডার তানেছ উদ্দিন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়াম্যান, ফরিদা ইয়াসমিন, বীরমুক্তিযোদ্ধা ইব্রাহীম খলিল, বাউশিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান প্রধানসহ প্রমূখ ।