মালয়েশিয়ায় ১৯৪ বাংলাদেশির কারাদণ্ড

মালয়েশিয়ায় ১৯৪ বাংলাদেশির কারাদণ্ড

কুয়ালালামপুরে অবৈধ অভিবাসনের অভিযোগে ১৯৪ জন বাংলাদেশি নাগরিককে সাত মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে মালয়েশিয়ার আদালত। গত সোমবার বিভাগীয় আদালত মালয়েশিয়ায় একসঙ্গে সবোর্চ্চ সংখ্যক বাংলাদেশির কারাদণ্ডের এই রায় দেয়।

এছাড়া অতিরিক্ত সময় সে দেশে অবস্থানের কারণে আরও তিন বাংলাদেশির বিচারের রায় হবে আগামী ১৮ জানুয়ারি।

মালয়েশিয়ায় থাকার বৈধ কাগজপত্র না থাকায় গত সোমবার একসঙ্গে ২৪০ জন অবৈধ অভিবাসীকে আদালতে হাজির করা হয়।

এছাড়াও পেকান নানাস ইমিগ্রেশন থেকে আরও ১১ জনকে বিশেষ বিভাগীয় আদালতে হাজির করা হয় অতিরিক্ত সময় মালয়েশিয়ায় অবস্থানের অভিযোগে।

ন্যাশনাল স্ট্রেইট টাইমস মালয়েশিয়া জানিয়েছে, আদালতে একসঙ্গে উপস্থিত করা সর্বোচ্চ সংখ্যক অবৈধ অভিবাসীর সংখ্যা এটি। বৈধ ট্র্যাভেলস ডকুমেন্ট না থাকায় ইমিগ্রেশন অ্যাক্ট ১৯৫৯/৬৩ এর অধীনে ২৪০ জন অবৈধ অভিবাসীর স্বপক্ষের বক্তব্য শোনা হয়। এদের সবারই বয়স ১৯ থেকে ৪৭ এর মধ্যে। বিভাগীয় আদালত সালাওয়াতি দেজামবারি ২৪০ জন আসামিকে ৭ মাস করে কারাদণ্ড দেন। এই রায় ডিসেম্বরের ৩১ তারিখ থেকে কার্যকর হবে। যে দিন তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

কারাদণ্ড প্রাপ্ত ২৪০ জন অভিবাসীর মধ্যে রয়েছেন ১৯৪ জন বাংলাদেশি, ২১ জন ইন্দোনেশীয়, ১৬ জন মায়ানমারের নাগরিক, ৫ জন ভিয়তনামের নাগরিক, ২ জন পাকিস্তানি এবং একজন ভারতীয় ও একজন নেপালি।

অতিরিক্ত সময় অবস্থানের অপরাধে যে ১১ জনকে আদালতে হাজির করা হয়েছে, তাদের মধ্যে রয়েছে ৩ জন বাংলাদেশি, ৭ জন ইন্দোনেশীয় এবং একজন ভারতীয়। একই অ্যাক্টের অধীনে এই ১১ জনের কোনো অপরাধ প্রমাণিত হয়নি।

জোহর ইমিগ্রেশন বিভাগ অভিযোগটি আদালতে উত্থাপন করে এবং নরহাসিমাহ ওথম্যান প্রোসিকিউশনে বিচার সম্পন্ন হয়। এ সময় কোনো অভিবাসীর পক্ষেই কোনো প্রতিনিধিত্বকারী আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।